World


মধ্যরাতে ‘একুশের প্রথম প্রহর’ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় পালিত হবে

ঢাকা: সব রাজপথ, গলিপথ গিয়ে মিশছে অমর একুশে শহিদ প্রাঙ্গনে। রাত জাগবে বাংলাদেশ। রাত জাগবেন এই দেশের মানুষ। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহিদ চত্বরে আছড়ে পড়বে জনতার ঢেউ। মধ্যরাত পেরিয়েই (১২ বেজে ১ মিনিট) একুশের প্রথম প্রহর রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় পালন করবে বাংলাদেশ সরকার। ইতিমধ্যেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অভিমুখে যেতে শুরু করেছেন শ্রদ্ধা জানাতে সবাই। রাত বাড়ছে মহানগর ঢাকা কল্লোলিত হতে শুরু করেছে।

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ও ভাষা শহিদ দিবস হিসেবে ২১ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশের সর্বত্র জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত থাকবে। মধ্যরাতে প্রথম শহিদ বেদীতে মালা দেবেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ। তার পরেই শ্রদ্ধা জানাবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এরপর শ্রদ্ধা জানানো হবে স্থল, নৌ এবং বিমান বাহিনির পক্ষ থেকে। তার পরেই আসবে সব রাজনৈতিক দলের তরফে পুষ্প স্তবক দেওয়ার পালা। বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থা (বাসস) জানাচ্ছে, শুক্রবার মাতৃভাষা আন্দোলনের ৬৮ বছরও পূর্ণ হবে। ১৯৫২ সালে তদানীন্তন পূর্ব পাকিস্তানের প্রাদেশিক রাজধানী ঢাকায় বাংলা ভাষার অধিকারের দাবি জানিয়ে মিছিল হয়।

২১ ফেব্রুয়ারির সেই মিছিলে গুলি চালায় পাক সরকারের পুলিশ। শহিদ হন, সালাম, জব্বার, শফিক, বরকত ও রফিক। সেই ভাষার লড়াই পরে পাকিস্তান থেকে ছিন্ন হয়ে বাংলাদেশ গঠনের প্রাথমিক ধাপ। ১৯৯৯ সালে রাষ্ট্রসংঘের শিক্ষা, বিজ্ঞান ও সাংস্কৃতি বিষয়ক সংস্থা- ইউনেস্কো মহান একুশের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের স্বীকৃতি দেয়। এর পর থেকে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে দিবসটি পালিত হচ্ছে। বাসস জানাচ্ছে, ‘বাঙালি জাতির জন্য এই দিবসটি হচ্ছে চরম শোক ও বেদনার, অনদিকে মায়ের ভাষা বাংলার অধিকার আদায়ের জন্য সর্বোচ্চ ত্যাগের মহিমায় উদ্ভাসিত।

Related Articles

Comments